তর্কবাজ বনাম বাজিবাজ এর গল্প

দুই বন্ধু। একজন হচ্ছে তর্কবাজ, সবকিছুতেই তার তর্ক করা চাই। আরেকজন হচ্ছে বাজিবাজ, সবকিছুতেই তার বাজি ধরা চাই। ঘটনাচক্রে তারা দুজনই একটা পার্কে বসে ছিল।

তর্কবাজঃ বুঝলি, এই যুগে কম্পিউটার নিয়ে আমরা এত হইচই করি, কিন্তু তুই কি মনে করিস কম্পিউটার আমরা একেবারে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছাতে পেরেছি?

বাজিবাজঃ অবশ্যই।

তর্কবাজঃ কখনোই না। তুই কি ভাবিস ওই যে গেটের কাছে ভিক্ষুকটা বসে আছে, সে কম্পিউটার জানে?

বাজিবাজঃ অবশ্যই জানে।

তর্কবাজঃ প্রশ্নই ওঠে না।

বাজিবাজঃ বেশ বাজি ধর?

তর্কবাজঃ বেশ, বাজি। কত টাকা?

বাজিবাজঃ ৫০০ টাকা

তর্কবাজঃ ওকে ডান।

এ সময় তর্কবাজের একটা ফোন এল। নেটওয়ার্ক ভালো না বলে সে একটু সরে গিয়ে কথা বলতে লাগল। ওই ফাঁকে বাজিবাজ চট করে চলে গেল গেটের কাছে। গিয়ে ভিক্ষুক্টাকে বলল, “এই নিন ১০ টাকা। একটু পর আমি আপনাকে এসে বলব আপনি কি কম্পিউটারের কোনো ব্যবহার জানেন? আপনি বলবেন, এমএস ওয়ার্ডে বাংলা টাইপ করতে পারেন। কি পারবেন না ঠিকঠাক মতো বলতে। পারলে আপনাকে ২০ টাকা দেব।”

‘পারব। ভিক্ষুক বলল;

-গুড! মনে রাখবেন, আপনি আমার প্রশ্নের উত্তরে বলবেন ‘এমএস ওয়ার্ডে বাংলা টাইপ করতে পারেন। ঠিক আছে?’

-আচ্ছা। বাজিবাজ বন্ধু চটকরে তার বেঞ্চে ফিরে এলো। তর্কবাজ ততক্ষনে ফোনে কথা বলা শেষ করে ফিরে এসেছে। সে বুঝতেই পারেনি যে এই ফাঁকে বাজিবাজ পার্কের গেটের কাছে গিয়ে ভিক্ষুকের সঙ্গে একটা ষড়যন্ত্র করে এসেছে।

বাজিবাজঃ চল তাহলে পরীক্ষা হয়ে যাক।

তর্কবাজঃ বেশ চল ।

দুজনে ভিক্ষুকের কাছে গেল। বাজিবাজ বলল, ‘এই যে ভাই, আপনি কি কম্পিউটারের কোনো ব্যবহার জানেন?’

ভিক্ষুক মাথা নাড়ল।

বলল – জানি।

– কি জানেন?

– আমি এমএস ওয়ার্ডে বাংলা টাইপ করতে পারি!

তর্কবাজ বন্ধু হতভম্ব হয়ে গেল। একটা রাস্তার ভিক্ষুকও কম্পিউটার জানে! বাজিতে হেরে গেলেও তার আনন্দ হলো। সে বাজিবাজকে ৫০০টাকা বের করে দিল। ওদিকে বাজিবাজও ভিক্ষুককে ২০ টাকা দিল। তখন ভিক্ষুক ফিসফিস করে বলল, ‘স্যার, আমি সি-প্রোগ্রামিংয়ের ফার্স্ট পার্টটা গত সপ্তাহে শেষ করেছি…!

লেখকঃ আহসান হাবীব।

We will be happy to hear your thoughts

Leave a reply

Register New Account
Nick Name (required)
Reset Password